সেই চিয়ারলিডার এখন মালিঙ্গার স্ত্রী

শুধু অ্যাকশন দিয়ে নয়, তার ফ্যাশন-সচেতনতাও নজর কেড়েছে সবার। প্রায় প্রতি সিরিজেই চুলের স্টাইল পরিবর্তন করেন।

বিশ্বের একমাত্র বোলার হিসেবে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিনবার হ্যাট্রিক করেছেন। তিনি শ্রীলঙ্কার পেসার লাসিথ মালিঙ্গা।

বিশ্বমানের এই পেসার মালিঙ্কার স্ত্রীকে নিয়ে আছে মজার  ঘটনা। কিন্তু কবে, কোথায়, কাকে বিয়ে করলেন তিনি ভক্তদের মনে এমন প্রশ্ন আসাই স্বাভাবিক।

একটি বিজ্ঞাপনের শ্যুটিং করার সময় তানিয়া নামের এক মেয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়েছিল মালিঙ্গার। সেই বিজ্ঞাপনের ইভেন্ট ম্যানেজার হিসেবে কাজ করেছিলেন তানিয়া। প্রথম দেখাতেই ‘বোল্ড’ হয়ে গিয়েছিলেন লঙ্কান পেসার। তারপর মন দেয়-নেয়া। অতঃপর বিয়ে। বর্তমানে তানিয়া পেরেরাকে নিয়ে সুখের সংসার করছেন তিনি।

চিয়ারলিডার তানিয়া এখন মস্ত এক কোম্পানির ম্যানেজার। আজকের জায়গায় পৌঁছাতে অনেক কাঠ-খড় পোড়াতে হয়েছিল। কলেজে পড়ার সময় থেকেই খুব ভাল নাচতে পারতেন তানিয়া। পেশাদার ড্যান্সার হিসেবেও কাজ শুরু করেছিলেন তিনি। পরে শ্রীলঙ্কা ছেড়ে তানিয়া পাড়ি জমান অস্ট্রেলিয়ায়। সেখানে চিয়ারলিডার হিসেবে কাজ শুরু করেন বর্তমানের মালিঙ্গার স্ত্রী।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) বিদেশি ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে মারাত্মক সব অভিযোগ এনেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার এক চিয়ারলিডার।

মালিঙ্গার স্ত্রীকে এরকম কঠিন সময় পেরোতে হয়েছিল কিনা জানা নেই, তবে পাহাড় ডিঙিয়েই আজ একটি কোম্পানির ম্যানেজার হয়েছেন তানিয়া। বহু পেশায় নিজেকে পরখ করে অবশেষে একটি কোম্পানির ম্যানেজার হয়েছেন মালিঙ্গার স্ত্রী।

মালিঙ্গা একদিনে বিশ্বত্রাসী বোলার হননি। মনের আনন্দে খেলতে খেলতে একদিন জাতীয় দলের হয়ে খেলবেন, সুদূরতম কল্পনাতেও ভাবেননি। বাবা ছিলেন মোটর মেকানিক, মা ব্যাংকার। মায়ের আশা ছিল মালিঙ্গাও ব্যাংকার হবে। পড়াশোনাতেও বেশ ভালো ছিলেন। অঙ্কের দিকে ঝোঁক ছিল খুব।

নিজ গ্রামের দেবাপাথিরাজা কলেজ থেকে গলের বিদ্যালোকা কলেজে যাওয়ার পর থেকে মালিঙ্গার জীবনের মোড় পাল্টে যাওয়ার শুরু। গল ক্রিকেট ক্লাবের কোচ কাম প্লেয়ার চম্পকার ঘাড়ের চোটের সুযোগে ২০০১ সালে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক হয়ে গেল মালিঙ্গার। অভিষেকেই ছয় উইকেট, এরপর আর পেছনে তাকাতে হয়নি। পরের ঘটনা সবারই জানা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*