একটা বাজিতে হেরে গিয়ে টুইংকেল খান্না বিয়ে করেছিলেন অক্ষয়কে

অক্ষয় কুমারের জীবনে টুইংকেল খান্না ছাড়াও আরো কয়েকজন অভিনেত্রীর সাথে নাম জড়িয়েছিল কখনো রেখা, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া কখনো রবীনা ট্যান্ডন বা কখনো আয়েশা জুলকার মত নায়িকাদের সাথেও। যদিও সেই সকল সম্পর্কগুলি বেশিদিন টেকেনি অল্প সময়ের মধ্যেই ভেঙে গিয়েছিল।

সবশেষে অক্ষয় কুমার বিয়ে করেন টুইংকেল খান্নাকে একটি বাজিতে হারিয়ে। আর এই শর্ত ছিল টুইংকল খান্না বাজিতে হেরে গেলে তাকে বিয়ে করতে হবে।

খবর সূত্রে জানা গিয়েছে অক্ষয় কুমার নাকি টুইংকেল খান্না কে দেখার পরেই প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন। তবে তাদের বিয়ে করার সিদ্ধান্তটি হয় একটি ফিল্মি স্টাইলে। যদিও এটা ফিল্মের গল্প নয়, তাদের বিয়ে হয়েছিল একটা বাজি ধরে।

অনেকে ভেবেছিল তাদের সম্পর্কটা খুব বেশিদিন টিকবে না। কিন্তু আজ তারা ১৮ বছরের সুখী দম্পতি। যদিও অক্ষয় কুমার বিয়ের পরেও প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সাথে নাম জড়িয়ে ছিল।

জানা গিয়েছে, ২০০০ সালে আমির অভিনীত “মেলা” মুভিটি যখন আসে, তার বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন টুইংকেল খান্না। আর এই মুভিটি নিয়ে তিনি বেশ উৎসাহী ছিলেন এবং আশা করেছিলেন এটি একটি সুপারহিট মুভি হবে। কিন্তু অক্ষয় কুমার তাকে বলেছিলেন, এটা একটা ফ্লপ সিনেমা হতে চলেছে।

এই শর্তে টুইংকেল খান্না থেকে বাজি ধরেছিলেন যদি ফিল্মটি ফ্লপ হয় তাহলে তিনি অক্ষয় কুমারকে বিয়ে করবেন। যদিও তখন তার ক্যারিয়ার শীর্ষস্থানে ছিল, তাই বিয়ে করতে ইচ্ছুক ছিল না।

আরও পড়ুনঃ দ্রৌপদীর ভূমিকায় দীপিকা, মহাভারতের বাকি চরিত্রে কারা রয়েছে?

মুভিটি মুক্তি পাওয়ার পর দেখা যায় বক্স অফিসে তেমন ভাবে সাড়া ফেলতে পারেনি। মুখ থুবরে পড়ে “মেলা”, সুপার ফ্লপ হয়। এর পরেই সেই শর্ত মতে ২০০১ সালে অক্ষয় কুমারকে বিয়ে করে নেন টুইংকেল খান্না।

তাদের বিয়ের আয়োজনটা ততটা আড়ম্বরপূর্ণ ভাবে হয়নি। বিয়ের অনুষ্ঠানে কয়েকজনকে নিয়েই বিয়েটা সম্পূর্ণ করেন। তাদের বিয়েটা আবার অনেকে বিশ্বাসও করেনি।

মুম্বাইয়ের একটি ফটোশ্যুট ম্যাগাজিনে টুইংকেল খান্নাকে প্রথম দেখেছিলেন অক্ষয় কুমার। আর তখনি তিনি প্রেমে পড়ে যান। তার সাথে তোলা ছবিটি আজও তিনি সযত্নে রেখেছেন। এর পরেই তারা “ইন্টারন্যাশনাল খিলাড়ি” মুভি একসাথে জুটি বেঁধেছিল তারপর থেকেই ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বেড়ে যায়।

বিয়ের পর অভিনয় ছেড়ে দেন টুইংকেল খান্না। অক্ষয় কুমারের জীবনের নানান কথা ছড়িয়েছিল, তবু তিনি কোন কথায় কান দেননি। বরং তাদের সম্পর্কের ভিত আরও মজবুত হয়েছিল। ১৮ বছরের এই সুখী দম্পতির দুই সন্তান হয়েছে আরভ এবং সিতারা নামে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*