কাজলের প্রতিরাতে খরচ ৩৩ লাখ টাকা!

তারকা মানেই চাকচিক্যের ছটা। তাদের জীবন যাপনে শুধুই আলোর ঝলকানি। কোনো উৎসব হলেই তা বেড়ে যায় কয়েকগুণ। যদি তা হয় ব্যক্তিগত জীবন বিষয়ক, তাহলে তো সোনায় সোহাগা। সদ্য বিয়ের পিঁড়িতে বসা দক্ষিণী তারকা কাজল আগারওয়ালের মধু চন্দ্রিমা নিয়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা।

মধু চন্দ্রিমায় প্রথমে কোথায় গেছেন তিনি, সেকথা শেষমেশ না জানিয়ে থাকতেই পারলেন না এই অভিনেত্রী। সোশ্যাল মিডিয়ার জানিয়েই দিলেন কোথায় কাটাচ্ছেন মধূচন্দ্রিমার সময়টা। একের পর এক ছবিগুলো প্রকাশ করে কাউকে ঈর্ষায় আর কাউকে আফসোসের জোয়ারে ভাসিয়ে দিলেন তিনি।

স্বামী গৌতম কিসলুকে নিয়ে মধুর এই সময় কাটাচ্ছেন মালদ্বীপের কনরাড দ্বীপে। ইনস্টাগ্রামে দেওয়া ছবিতে কিসলু ও কাজল জানিয়েছেন, তারা মালদ্বীপে রাঙ্গালি আইল্যান্ড রিসোর্টে আছেন। এ হোটেল মালদ্বীপের রাঙ্গালি দ্বীপে পানির নিচে অবস্থিত।

যেখানে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম অর্ধনিমজ্জিত জাদুঘর। সমুদ্র থেকে প্রায় ১৬ ফুট নিচে কনরাড মালদ্বীপ রাঙ্গালি আইল্যান্ড হোটেলের ভেতরে আছে কাচঘেরা একটি রেস্তোরাঁ। যেখানে বসে সামুদ্রিক প্রাণীদের চলাফেরা দেখা যায়। সমুদ্রের নিচে ১৮০ ডিগ্রি প্যানারমিক ভিউতে বসে রেস্টুরেন্টের খাবারের তালিকা অনুযায়ী মালদ্বীপের গলদা চিংড়ি আর পশ্চিমা খাবার খাওয়া যায়। এই হোটেলে এক রাত থাকতে খরচ করতে হয় বাংলাদেশি টাকায় ৩৩ লাখের বেশি।

গত জুন মাসে আংটিবদল সেরেছিলেন কাজল ও গৌতম । এরপর গত ৩০ অক্টোবর ধুমধাম করে তাদের বিয়ে হয়। প্রায় তিন বছর চুটিয়ে প্রেম করার পর বিয়ে করলেন তারা। ২০০৪ সালে ‘কিউ হো গায়া না’ ছবিটি দিয়ে বলিউডে যাত্রা শুরু এই অভিনেত্রী।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*